মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:২৯ অপরাহ্ন

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি:
চাটগাঁ সময় পত্রিকায় চট্টগ্রাম মহানগর সহ বিভাগের আওতাধীন সকল জেলা, উপজেলা এবং কলেজ / বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে । যোগাযোগ : ০১৯৬৫-৬৫২৭৯৬ ।

৩ বছর পর সুদমুক্ত ঋণে সরকারি গাড়ি পাবেন উপসচিবগণ







চাটগাঁ সময় ডেস্ক : সরকারের উপসচিব পদে কমপক্ষে তিন বছর অতিক্রান্ত হওয়ার পর একজন কর্মকর্তা সুদমুক্ত ঋণে গাড়ি সুবিধা পাবেন। আগে উপসচিব হলেই এ সুবিধা পেলেও সংশোধিত নীতিমালায় তিন বছর সময়সীমা বেধে দেওয়া হয়েছে।

সুদমুক্ত ঋণ সুবিধায় গাড়ি কিনতে সংশোধিত নীতিমালা জারি করে তা বুধবার (১৯ আগস্ট) গেজেট আকারে প্রকাশ করা হয়েছে।



‘প্রাধিকারপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তাদের ঋণ এবং গাড়ি সেবা নগদায়ন নীতিমালা ২০২০ (সংশোধিত)’ শীর্ষক নীতিমালায় প্রাধিকারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছে। সুদমুক্ত ঋণ সুবিধা প্রাপ্তির জন্য সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে সার্বক্ষণিক গাড়ি ব্যবহারের প্রাধিকারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হতে হবে।

‘সুপিরিয়র সিলেকশন বোর্ডের (এসএসবি) সুপারিশক্রমে সরকারে উপসচিব পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত হয়ে অন্যূন তিন বছর অতিক্রম করেছেন এমন কর্মকর্তা, সরকারের যুগ্মসচিব, অতিরিক্ত সচিব ও সচিব/সিনিয়র সচিব। ’ তবে অধুনালুপ্ত বিসিএস (ইকনমিক) ক্যাডারের যুগ্মপ্রধান বা তদুর্ধ কর্মকর্তা, লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের যুগ্মসচিব (ড্রাফটিং) থেকে তদুর্ধ পর্যায়ের কর্মকর্তা যার সরকারি যানবাহন অধিদপ্তর থেকে সার্বক্ষণিক ব্যবহারের জন্য গাড়ির সুবিধাপ্রাপ্ত।

তবে এসব পদে চুক্তিতে বা রাষ্ট্রপতির ১০ শতাংশ কোটায় নিয়োজিত কর্মকর্তারা এর অন্তুর্ভুক্ত হবেন না। তবে রাষ্ট্রপতির ১০ শতাংশ কোটায় নিয়োজিত কর্মকর্তা এর আগেই সার্বক্ষণিক সরকারি গাড়ি ব্যবহারের প্রাধিকারপ্রাপ্ত হলে এ শর্ত প্রযোজ্য হবে না বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আগে উপসচিব হলেই এ সুদমুক্ত গাড়ি সুবিধা পেতেন। সংশোধিত নীতিমালায় তিন বছর সময়সীমা বেধে দেওয়া হয়েছে।



নীতিমালা অনুযায়ী, শৃঙ্খলাভঙ্গজনিত বিভাগীয় মামলা বা ফৌজদারি মামলা চলমান থাকলে, বিভাগীয় মামলায় গুরুদণ্ড ভোগের দুই বছর এবং লঘুদণ্ড ভোগের এক বছর অতিক্রম না করলে সুদমুক্ত ঋণের অযোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।

গাড়ির রেজিস্ট্রেশন নিয়ে বলা হয়েছে, চুক্তি সম্পাদনের ৯০ দিনের মধ্যে সংশ্রিষ্ট কর্মকর্তাকে গাড়ি ক্রয়, রেজিস্ট্রেশন, বিমাসহ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য কার্যক্রম সম্পন্ন করতে হবে। এর ব্যত্যয় হলে ৯০ দিন পর থেকে সুদমুক্ত ঋণের ওপর ১৫ শতাংশ টাকা জরিমানা দিতে হবে। গাড়ির ফিটনেস, ট্যাক্স টোকেন ও বিমার নবায়ন প্রতিবছর নিজ অর্থায়নে করতে হবে।

গাড়ি রক্ষণাবেক্ষণ নিয়ে বলা হয়, পরিবহন কমিশনারের ছাড়পত্র নেওয়ার পর গাড়ি মেরামত, সংরক্ষণ, জ্বালানি, ড্রাইভারের বেতন বাবদ অর্থ পাবেন। এজন্য এ হিসাব অর্থবিভাগের অনুমোদনক্রমে নির্ধারিত সময়ে প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করা হবে। চুক্তির শর্ত বরখেলাপ বা সরকারের অসুমতি ছাড়া গাড়ি কিনলে রক্ষণাবেক্ষণ ব্যয় পাবেন না।



সরকারের সচিবরা তাদের পদমর্যাদা অনুসারে গাড়ি সংক্রান্ত অন্যান্য সুবিধা প্রাপ্য হবেন বলে উল্লেখ করা হয়েছে। গাড়ি বেচার ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, ক্রয় করা গাড়ি ঋণ পরিশোধের আগে বিক্রির ক্ষেত্রে সরকারে অনুমতি নিতে হবে। গাড়ি দুর্ঘটনা ও চুরি হলে কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে অবহিত করতে হবে এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার রক্ষণাবেক্ষণ ব্যয় অব্যাহত থাকবে। গাড়ি ক্রয়ের জন্য গৃহিত ঋণের কিস্তি পরিশোধের পর সংশ্রিষ্ট কর্মকর্তা গাড়ির মালিক হতে পারবেন বলে নীতিমালায় উল্লেখ করা হয়েছে।

গাড়ির ব্যবহার নিয়ে বলা হয়েছে, কর্ম অধিক্ষেত্রের ৮ কিলোমিটার ব্যসার্ধের মধ্যে সরকারি কাজে ভ্রমণের জন্য ব্যবহারকারী কোনো টিএ/ডিএ দাবি করতে পারবে না। ৮ কিলোমিটারের বাইরে বাসায় যাতায়াতের ক্ষেত্র ছাড়া ভ্রমণ করলে সরকার নির্ধারিত টিএ/ডিএ পাবেন।

কোনো কর্মকর্তা চাকরিতে থাকা অবস্থায় দাপ্তরিক প্রয়োজন মিটানোর পরে গাড়িটি ব্যক্তিগত প্রয়োজনে পরিবারের সদস্য সমন্বয়ে ব্যবহার করতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে ওই কর্মকর্তার গাড়ি ব্যবহারের বিষয়ে দূরত্ব সংক্রান্ত সরকারি নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে না।



গাড়িটি ভাড়া, লিজ বা অন্যকোনো ব্যক্তির কাছে হস্তান্তর বা বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে ব্যবহারের জন্য হস্তান্তর করলে তা সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপীল) বিধিমালা, ২০১৮ অনুযায়ী ’অসদাচরণ’ বলে গণ্য হবে। সুদমুক্ত ঋণ সর্বোচ্চ ১২০টি সমান কিস্তিতে আদায়যোগ্য হবে। এক্ষেত্রে ১ শতাংশ সার্ভিস চার্জ আরোপ করা হবে। কোনো কর্মকর্তা চাইলে এককালীনও কিস্তি পরিশোধ করতে পারবেন।

কোনো কর্মকর্তা স্বেচ্ছায় চাকরি ত্যাগ বা সরকার বাধ্যতামূলক অবসর বা চাকরি থেকে বরখাস্ত করলে বকেয়া পাওনা পেনশন/গ্রাচ্যুয়িটির সঙ্গে সমন্বয় করা হবে।



গাড়ির অবচয় হিসাব সর্বোচ্চ ৮ বছর ধরে বলা হয়েছে, সরকারি দায়িত্ব পালনের জন্য সরকারি গাড়ির পরিবর্তে গাড়ি ক্রয়ের জন্য নগদায়নের সুবিধা দেওয়া হয়।

সংশোধিত এ নীতিমালার কোনো কিছু অস্পস্টতা থাকলে সরকার গেজেট প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে তা দর করতে পারবে এবং এ বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ব্যাখ্যাই চূড়ান্ত হবে বলে গেজেটে উল্লেখ করা হয়।

সংবাদটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন...
















Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *
















© All rights reserved © 2019 Chatga Somoy
Design & Developed BY N Host BD