শুক্রবার, ০৭ অগাস্ট ২০২০, ০৯:২৭ পূর্বাহ্ন

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি:
চাটগাঁ সময় পত্রিকায় চট্টগ্রাম মহানগর সহ বিভাগের আওতাধীন সকল জেলা, উপজেলা এবং কলেজ / বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে । যোগাযোগ : ০১৯৬৫-৬৫২৭৯৬ ।

জনগণকে কাছে থেকে সেবা করতে চান নারী নেত্রী জাহানারা বেগম







মো: রবিউল আলম: রাজনীতি যারা করেন তাদের চেহারায় আলাদা একটা ছাপ থাকে। কথা ও চলন-বলনে থাকে দাপুটে প্রভাব। যার কথা বলবো তিনি এসবের থেকে একটু ভিন্ন। চেহারায় যেমন সরলতার ছাপ তেমনি কথাবার্তায়ও নমনীয় গুণের একজন মানুষ। একজন মা ও গৃহিণীর পাশাপাশি এখন পুরোদস্তুর রাজনীতিবিদও। হ্যা, এতক্ষণ যার কথা বলছিলাম তিনি চট্টগ্রাম মহানগর পূর্ব ষোলশহর ৬নং ওয়ার্ড মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জাহানারা বেগম।

আলাপকালে উঠে এসেছে রাজনীতি,সংসার ও সমাজজীবনের নানা কথা । পাঠকদের জন্য তা তুলে ধরা হলো:



জাহানারা বেগম। মোকাবেলা করে চলেছেন নানাবিধ সমস্যা ও চ্যালেঞ্জ। আওয়ামী লীগ ঘরাণার রাজনীতির সাথে তার সম্পৃক্ততা কৈশর থেকে। সেই ছাত্রজীবন থেকে ১৯৮৯ সালে যুক্ত হয়েছিলেন ছাত্রলীগের রাজনীতিতে।

কথার ফাঁকে জানতে চাইলাম কৈশরে কেন, কী কারণে ছাত্রলীগে যুক্ত হয়েছিলেন। বললেন তার বাবা ছিলেন একজন মুক্তিযোদ্ধা, খেতে বসতে সব সময় বলতেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কথা। তিনি কীভাবে বাঙ্গালী জাতির অভিভাবক হয়ে উঠেছিলেন। বাংলাদেশকে স্বাধীন করতে নির্যাতন ও কারাবরণ করেছেন কিন্তু হানাদারদের সাথে আপোষ করেননি।

বঙ্গবন্ধুর এসব বীরত্বপূর্ণ গল্পগুলো কিশোর জাহানারার কচি মনে দাগ কেটেছিলো। সাথে তিনি আক্ষেপ করে বললেন তার বাবা মুক্তিযোদ্ধে সহযোগিতামুলক অংশগ্রহণ করলেও সরকারি নথিতে তালিকাভুক্ত হয়ে সে সম্মানটি পৃবিথীতে দেখে যেতে পারেননি।

কার হাত ধরে রাজনীতি পথচলা জানতে চাইলে তিনি বললেন, ১৯৮৯ সালে ততকালীন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাউল করিম তাকে ছোট বোনের মতো হাতে ধরে ছাত্রলীগে যুক্ত করার মাধ্যমে রাজনীতির প্রাথমিক দীক্ষা দেন।

অবশ্য কোনো পদে জায়গা না হলেও ১৯৯৩ সালে মহিলা যুবলীগে যুক্ত হয়ে ৬নং ওয়ার্ডের প্রচার সম্পাদিকার দায়িত্ব পালন করেন টানা ১৩বছর। পরে বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামীলীগে যুক্ত হয়ে ৬নং ওয়ার্ডের বি-ইউনিট প্রচার সম্পাদিকার দায়িত্বও পালন করেন জাহানারা বেগম। সর্বশেষ গত একাদশ সংসদ নির্বাচনের পর ৬নং ওয়ার্ড মহিলা আওয়ামীলীগের কাউন্সিল হলে তিনি সকল ডেলিগেটদের প্রত্যক্ষ ও বিপুল ভোটে সভাপতি নির্বাচিত হন।

টানা এই রাজনৈতিক জীবনে নানা সমস্যা ও বাধার সম্মুখীন হওয়ার কথাও আলাপচারিতায় তুলে ধরেন তিনি। বললেন আদালতে জায়গা জমির মোকাদ্দমার জন্য একটি সার্টিফিকেটের প্রয়োজন পড়লে তার ওয়ার্ডের এক বিএনপি কাউন্সিলরের কাছে গেলে শুধুমাত্র আওয়ামীলীগ করার অপরাধে সার্টিফিকেটটি পাননি সেদিন ।



এছাড়া নানা তিরস্কার ও মামলার গ্লানিও টানতে হয়েছে তাকে। শিকার হয়েছেন নিজ দলের কিছু নেতার ঈর্ষারও।

একজন গৃহিণী হয়েও সংসার আর রাজনীতিকে এক সাথে চালানোর মতো দুঃসাহসিক চ্যালেঞ্জ কেনো নিলেন এমনটি জানতে চাইলে তিনি জানালেন, একান্ত জনগনের সেবা করার জন্যই তার এই ত্যাগ। সাথে এও বললেন যে যেই দল করুক আমি কারো প্রতি বৈরিতা পোষণ করি না।

জনগণের সেবা করার জন্য ভবিষ্যৎ কী পরিকল্পনা আছে জানতে চাইলে জাহানারা বেগম জানান, তিনি আগামী ( ২০১৯ এর শেষ অথবা ২০২০ এর শুরুতে সম্ভাব্য অনুষ্ঠেয়) চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) নির্বাচনে ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করবেন।

নির্বাচনকে সামনে রেখে নিজ ওয়ার্ডসহ আশেপাশের ওয়ার্ডসমূহে দলীয় কার্যক্রমের পাশাপাশি জনহিতকর কার্যক্রম ও প্রচারণা চালাচ্ছেন। তার অগনিত কর্মীবাহিনী রয়েছে। যদি সিনিয়র নেতৃবৃন্দ্ব সমর্থনদান করেন তবে কাউন্সিলর হিসেবে জয় সুনিশ্চিত। এজন্য তিনি দলীয় নেতাকর্মী ও ওয়ার্ডের সর্বস্তরের কাছে দোয়া ও সহযোগিতাও কামনা করেছেন।

সংবাদটি আপনার ফেসবুকে শেয়ার করুন...
















Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *
















© All rights reserved © 2019 Chatga Somoy
Design & Developed BY N Host BD